খোকাবাবু স্টার জলসা

স্টার জলসা র খোকাবাবু ধারাবাহিকের এই দুই মুখ্য চরিত্র অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। রাজশেখর গাঙ্গুলির আদুরে, ন্যাকা, বদমেজাজি মেয়ে তরীর বিবাহ প্রাকাল্লে তাদের বাড়িতে উপস্থিত হয় তারই বাবার বন্ধুর ছেলে খোকা। যাকে দেখলেই তেলেবেগুনে জ্বলে ওঠে তরী, আর খোকাও তাকে কোন পরোয়া করে না। অতএব দুয়ে মিলে শুরু হয় তুমুল হাতাহাতি। এদিকে বিয়ের দিন তরীর হবু বর প্রিতকে পুলিশ ভুয়ো কেসে তুলে নিয়ে যায়।

দ্বিতীয়বারের মত লগ্নভ্রষ্ট হতে চলা তরীকে বিবাহ করে খোকা। হাতাহাতি এবার রুপ নেয় তুমুল যুদ্ধে। বলতে কোন বাঁধা নেই আমাদের এই ইয়ং জেনারেশনের জন্য এন্টারটেনমেন্ট বলতে যা বোঝায় এই সিরিয়ালটি ঠিক তাই। ঝরঝরে ফ্রেশ একটি আপাদমস্তক সিরিয়াল। গল্প যতটা ভাল, ততটাই ভাল মেকিং ও সিরিয়ালটির স্ক্রিপ্ট। একঘেয়েমি ত নেই, বরং প্রতিটি এপিসোডেই থেকে যায় ভীষণ ভাললাগা।



অভিনয়ে প্রত্যেকে দূর্দান্ত। মৌসুমী সাহা, তরীর পরিবারের সকলে অভিনয়ে যেমন তাক লাগায়, তেমনই ভাল লাগায়। পাশ্বচরিত্রে আবারও নজর কাড়লেন আমাদের বৌমনি। প্রতীক, তৃণার পারফরম্যান্স এককথায় লা জবাব, আমাদের ইন্ড্রাষ্টির জন্য অবশ্যই তারা সম্ভাবনাময়ী।

হিন্দি গানের ব্যবহারগুলো বেশ ভাল লাগে, তবে দেশাত্মবোধক গানগুলোর ব্যবহার একেবারেই কমিয়ে দেয়া ভাল কারণ এটা এ সিরিয়ালের সাথে একেবারেই যায়না। তবে প্রযোজকের তৈরি প্রতিটি গান ও গানগুলির ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর মনকাড়া। বিশেষ করে মাগো আমার মা।

সবমিলিয়ে আমাদের নির্মাতা প্রমাণ করে দিলেন রিমেক না করেও একটি ঝরঝরে ফ্রেশ হিট সিরিয়াল আমরাও বানাতে পারি। হিট: প্রায় সবকিছু।